ঢাকা: সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

জিমেইলের এসব সুবিধার কথা জানতেন?

এ যুগে প্রায় সবার কাছেই খুবই পরিচিত এক নাম জিমেইল। সেই ২০০৪ সালের ১ এপ্রিল থেকে এটা ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের নানা কাজে আসছে। প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে যেমন ছিল গুগলের এ সেবা আজ তার থেকে পরিবর্তন এসেছে অনেকটা।

বর্তমানে বিশ্বব্যাপী কত মানুষ জিমেইল ব্যবহার করছেন? এর উত্তরটা বিস্ময়কর। সংখ্যাটা হলো ১৫০ কোটির বেশি। এত মানুষ জিমেইল ব্যবহার করলেও এখনও এর এমন অনেক ফিচার আছে যেগুলো দৈনন্দিন জীবনে মানুষের কাজে আসে প্রচুর, কিন্তু ফিচারগুলো সম্পর্কে ধারণা নেই অনেকের।

শিডিউল সেন্ড
এ ফিচারটি জিমেইলে সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে। এর কাজ খুবই সাধারণ। আপনি একটি ইমেইল লিখে রেখে দেবেন। তারপর সেটা কখন পাঠাতে চান সে সময়টাও আপনি নির্ধারণ করে দেবেন। ব্যাস, আপনি কম্পিউটারের সামনে বসেন, না বসেন, নির্ধারিত সময়ে ইমেইল পৌঁছে যাবে প্রাপকের ঠিকানায়।

রাইট ক্লিক
মনে করুন একটি ইমেইল আপনি এক ট্যাব থেকে অন্য ট্যাবে নিতে চান বা আপনি হয়তো নির্দিষ্ট একজনের কাছ থেকে আসা ইমেইল খুঁজছেন বা এমন কোনো কনভারসেশন আছে যেটার নোটিফিকেশন আপনি পেতে চান না। এসবের জন্যই এসেছে রাইট ক্লিক। আর এসব পেতে আপনাকে স্রেফ কনভার্সেশন থ্রেডে রাইট ক্লিক করতে হবে।

ড্র্যাগ
ডেস্কটপে জিমেইল ব্যবহারকারী মাত্রই জানেন যে আপনার কাছে ইমেইলগুলো আপনি চাইলেই প্রাইমারি, সোশাল এরকম ক্যাটগরিতে আলাদা করে ফেলতে পারেন। তবে গুগল আপনাকে সুবিধা দিচ্ছে যে আপনি চাইলেই পুরো পুরো কনভার্সেশন থ্রেড স্রেফ ড্র্যাগ করে এক ট্যাব অন্য ট্যাবে নিয়ে নিতে পারবেন।

পাশেই আছে এআই
আপনি ইমেইল লিখতে বসলেন। তাই বলে জরুরি না যে আপনাকে বসে বসে সব লিখতে হবে। জিমেইলে এমন ফিচারও আছে, যার সাহায্যে আপনি ইমেইল লেখা শুরু করার পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরবর্তী শব্দ বা বাক্য কী হবে সে সংক্রান্ত সাজেশন পাবেন আপনি। তবে এ সুবিধা আপনাকে চালু করে নিতে হবে। এরজন্য প্রেমে যান জিমেইলের সেটিংসে, সেখান থেকে জেনারেল ট্যাবে। এখানে স্মার্ট কম্পোজের পাশে রাইটিং সাজেশনে একটা টিক দিয়ে দিন। জাদু শুরু।

কেমন দেখতে চান ইনবক্স সাজিয়ে নিন নিজেই
আপনি কি আপনার ইমেইলের ইনবক্স একটু ফাঁকা ফাঁকা দেখতে চান? তাহলে ডিফল্ট ভিউ আপনার জন্য ঠিক আছে। স্ক্রিনের ওপরে ডান পাশের সেটিংস থেকে যদি আপনি বেছে নেন কস্ফোর্টেবল অপশনটি তাহলে অ্যাটাচমেন্ট প্রিভিউ আর দেখা যাবেনো। আর আপনি যদি পছন্দ করেন একটু আঁটসাট একটা ব্যাপার, তাহলে আপনাকে সিলেক্ট করতে হবে ‘কম্প্যাক্ট।’

প্রাপক কী পারবে ঠিক করে দেবেন প্রেরক
আপনি একটা ইমেইল লিখে পাঠালেন। সেটার বডিতে থাকা টেক্সট যদি চান যে প্রাপক কপি করতে না পারুক, তবে সে ক্ষমতাও গুগল এখন প্রেরককে দিচ্ছে। একইসঙ্গে প্রেরক নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে ফাইল ডাউনলোডের ক্ষমতাও। এর পাশপাশি ঠিক করে দেওয়া যাবে ‘এক্সপায়রেশন টাইম।’

Rent for add

Facebook

for rent